ফ্রীল্যান্সিংয়ের-দৌড়-কত-দূর

ফ্রিল্যান্সিংয়ের-দৌড়-কত-দূর

এখানে যারা ফ্রীল্যানসিং কে পার্মানেন্ট হিসেবে না নেবার পক্ষে মত দিয়েছেন তাদের ফ্রীল্যানসিং অভিজ্ঞতা কতটুকু আমার জানা নাই। যেকোনো প্রফেশন এ সবাই সমান দক্ষতা অর্জন করতে পারে না। ফ্রীল্যানসিং সাধারণ জব থেকে ডিফারেন্ট। এখানে নিজে নিজে সব কিছু করতে হয়। সাধারণ চাকরিতে কোনো সমস্যা হলে অন্যজন সাহায্য করে। কিন্তু ফ্রীল্যানসিং এ অন্যের সাহায্য পাবার সুজুগ নাই। তাই এখানে কাজ করা চাকরি করার চাইতে অনেক কঠিন। এগুলো ঠিক আছে। কিন্তু কেন ফ্রীল্যানসিং কে পার্মানেন্ট জব হিসেবে নেয়া যাবে না? একজন মানুষ তার সারাজীবন ফ্রীল্যান্কিং করে কাটাতে পারবে। ইউরোপ, আমেরিকার অনেকেই পার্মানেন্ট জব হিসেবে ফ্রীল্যানসিং কে বেঁচে নিচ্ছে। একজন ফ্রীলান্সার তার অভিজ্ঞতা দিয়ে যেকোনো জায়গায় যেকোনো সময়ে জব করতে পারে। সব টেকনোলজি প্রতিষ্টান ফ্রীল্যানসিং অভিজ্ঞতাকে সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করে ও ভবিষ্যতে আরো বেশি মূল্যায়ন করবে। কারণ ফ্রীলান্সার চাকরির চাইতে কঠিন। সুতরাং যারা ফ্রীল্যানসিং করে তারা সাধারণ চাকরিজীবীদের চাইতে বেশি দক্ষ। ভবিষতে টেকনোলজি দুনিয়াতে আরো বেশি ফ্রীল্যানসিং নির্ভরশীল হবে। ফ্রীল্যানসিং এর অভিজ্ঞতা সাধারণ জব এর অভিজ্ঞতা থেকে বেশি মূল্যায়ন করা হবে। তাছাড়া একজন অভিজ্ঞ ফ্রীলান্সার কয়েক বছরের অভিজ্ঞতার পর ৪/৫ বছরে যা ইনকাম করতে পারে তা সারাজীবন চাকরি করেও ইনকাম করা সম্ভব নয়। কারণ ফ্রীল্যানসিং হলো চাকরি ও বেবসার সমন্বয়। এটা শুধু চাকরি নয় বা শুধু বেবসা নয়। ফ্রীল্যানসিং বেবসা ও চাকরি উভয়টাই। তাই একজন ফ্রীলান্সার হলো একটা কোম্পানি। আগেই বলেছি যে কোনো প্রফেশন এ সবাই সমানভাবে দক্ষ হতে পারে না। তাই বিভিন্ন জন বিভিন্ন দৃষ্টিতে তাদের নিজের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা দিয়ে তাদের প্রফেশন কে মূল্যায়ন করে। বাংলাদেশে ফ্রীল্যানসিং হলো সবচাইতে সম্ভাবনাময় পেশা। এই পেশার কেটে নেতিবাচব কিছু বলার আগে সবাইকে চিন্তা করা উচিত।

আমি এক সময় চাকরি চাইলেও পাইতাম না।এখন চাকরি চাইনা কিন্তু তারপর ও অনেক কোম্পানি আমারে অফার করে আমার ফ্রীল্যানসিং অভিজ্ঞতা দেখে। তাহলে কেন একজন মানুষ ফ্রীল্যানসিং কে পার্মানেন্টলি নিতে পারবে না?

সব উকিল, সব ডাক্তার সমান দক্ষতার হতে পারে না। তেমনি সব ফ্রীলান্সার ও সমান দক্ষতার হতে পারে না। তাই এটা পার্মানেন্টলি নেয়া যাবে না এটা ঠিক না। তাহলে কি ওকালতি পেশায় পার্মানেন্টলি নেয়া যাবে না?

লেখকঃ Subir Chowdhury
Spread the love

Author: admin