লেভেল ওয়ান সেলারদের জন্য টিপস

লেভেল ওয়ান সেলারদের জন্য

আজকের এই টিপসটি যারা ফাইবারের level one badge পেয়েছেন তাদের জন্য।

ফাইবারের সবচেয়ে বেশি কঠিন সময় হচ্ছে level one। যারা সম্পূর্ণ নতুন তাদের জন্য ফাইবার স্পেশালভাবে মার্কেটিং করে এবং যথেষ্ট প্রাধান্য দেয়। ফাইবার নতুনদের আগ্রহী করার জন্য এবং কাজ করার সুযোগ তৈরি করে দেওয়ার জন্য এই কাজটি করে, ব্যক্তিগতভাবে আমি তাদের এই ধরনের উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানাই কারণ এটি অন্যান্য মার্কেটপ্লেস থেকে একদম ব্যতিক্রম একটি পদক্ষেপ। সেজন্য আপনি যদি সত্যি কারের skilled person হয়ে থাকেন এবং আপনার গিগের সবকিছু professionally থাকে তাহলে দেখবেন কিছুদিনের মাঝেই আপনি অটোমেটিক ক্লাইন্ট থেকে রেসপন্স পাচ্ছেন এবং আপনার কাজের পরিমাণও বাড়ছে। এই ক্ষেত্রে ফাইবারের level one হতে খুব বেশি কষ্ট হয়না। আবার আপনি যদি লেবেল 2 কিংবা top rated হয়ে থাকেন সেই ক্ষেত্রেও আপনার কাজ পেতে তেমন কষ্ট হবে না যদি আপনার প্রোফাইলে সব requirement ঠিক থাকে। requirement বলতে আমি বুঝিয়েছি low cancellation rate, good response rate, delivery time maintain এবং সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কোন নেগেটিভ ফিডব্যাক না পাওয়া। আর এই ক্ষেত্রে আপনি যেহেতু level one পার হয়ে আসছেন, অলমোস্ট আপনার সব ধরনের অভিজ্ঞতা হয়ে গেছে ফাইবার সম্পর্কে, ফাইবার এ ক্লাইন্ট সম্পর্কে, কাজের রেট সম্পর্কে। তাই আপনি প্রতিটি project নিজের বুজ মত কমপ্লিট করার ক্ষমতা রাখেন এবং ক্লাইন্টকে কিভাবে inspire করতে হয়, সেটি জানেন। তাই এই লেভেলে আপনার তেমন কষ্ট হবে না যদিও বা সময় অনুযায়ী ফাইবারে কাজ এর পরিমাণ বাড়ে কমে। তারপরও একেবারে কাজের অভাবে অন্যের কাছে হাত পাততে হবে না। কারণ আমি ধরেই নিলাম এর মধ্যেই আপনি আপনার ফ্রিল্যান্সিং এ ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে সফল হয়ে যাবেন।

তো এবার আসি level one দের নিয়ে। level one এর কংগ্রাচুলেশন মেসেজটি পাবার পর খুব আনন্দ লাগতেছিল। অনেক স্বপ্ন আশা মনে উঁকি দেয় এ সময়টিতে। কিন্তু দেখা গেল সেই আনন্দ আর বেশিদিন টিকলো না। মনে হচ্ছে নিউ seller হিসেবেই তো ভালো কাজ পাচ্ছিলাম। এখনতো কাজ পাওয়া তো দূরের কথা কোনো ক্লাইন্ট এর রেসপন্সই পাচ্ছিনা। প্রোফাইলে কোন ঝামেলা হলো নাকি? কাজের রেট কি বেশি দিয়ে ফেলছি? গিগে কি কোন সমস্যা হলো? গিগ analysis এই সব কমে যাচ্ছে কেন? আমাকে দিয়ে কি আর তাহলে হবে না? এই রকম হলে তাহলে level two হব কিভাবে? এরকম হাজার হাজার প্রশ্ন উঁকি দেয় মনে।

সত্যিকার ভাবে বলতে গেলে এই সমস্যা শুধু আপনি না, যারা এখন উপরের লেভেলে আছে সবাই কমবেশি এই একই সমস্যা সম্মুখীন হয়ে এসেছে। এই ক্ষেত্রে আমি বলব level 1 এই সময়টি ফাইবারের প্রতিটি ফ্রিল্যান্সারের learning time। এই সময় আপনাকে অর্জন করতে হবে একজন আদর্শ ফ্রিল্যান্সার এর সকল প্রকার গুণাবলী। আপনার নিজেকেই করতে হবে নিজের ভবিষ্যৎ। কারোর idea কপি করে কোন লাভ হবে না। আপনার নিজের মতো করেই idea ডেভলপ করতে হবে, marketing skill develop করতে হবে, নিজের পথে নিজেকে হাঁটতে হবে তবে থেমে থাকা যাবে না। আমার পূর্ববর্তী সকল টিপস এবং নির্দেশনা গুলো কাজে লাগানোর এখনই সময়। যদি মানেন তাহলে আপনি হিরো আর না মানলে জিরো। কখনো হতাশ হয়ে যাবেন না, ধৈর্য থাকতে হবে আকাশ সমান, পরিশ্রমে কখনো পিছপা হওয়া যাবে না। যাক অনেক কিছুই তো বললাম, এখন ঝটপট করে টিপস গুলো বলে দিচ্ছি।

১। এই সময় আপনি তুলনামূলক কাজ একটু কম পাবার সম্ভাবনা বেশি 😭😭। তাই চেষ্টা করবেন একটি অর্ডারকে কিভাবে মাল্টিপল করা যায়। চেষ্টা করবেন ক্লাইন্ট কে মাইলস্টোন সেট করে দিয়ে কাজ দিতে। এই ক্ষেত্রে ক্লাইন্ট এর সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করবেন আগে এবং তাকে আপনার স্কিল সম্পর্কে এত সুন্দর করে বুঝাবেন, যেন সে আপনার কাজের প্রেমে পড়ে যায়,😁😁। এতে আপনার দুটি লাভ হবে ✌️✌️। এক হচ্ছে অর্ডার ক্যানসেল হবার সম্ভাবনা কম এবং 2 হচ্ছে আপনার ফিডব্যাক এবং order quantity বাড়বে। আপনার যদি cancellation রেট বেড়ে যায় সেই ক্ষেত্রেও এই টিপসটি অনেক কাজে দেয়। 😎😎

২। এ সময় উল্টাপাল্টা কাজ না নেওয়াই সবচেয়ে ভালো।😲😲 উল্টাপাল্টা বলতে আমি বুঝিয়েছি কম রেইট এর কাজ এবং ক্লাইন্ট এর লোকেশন। আমি এখানে উল্লেখ করছি না কোন লোকেশন এর ক্লাইন্ট সুবিধার হয় না, এটা আপনার নিজেকেই বুঝে নিতে হবে। ভাবছেন, কাজই তো পাইনা এখানে আবার ক্লাইন্ট denay করাটা কি ঠিক? ১০০% পার্সেন্ট ঠিক। আজকে আপনি level one বলে কম রেটে কাজ নিতে দ্বিধা করছেন না। ভাবছেন ক্ষতি কি তাতে। কাজের রেট কমিয়ে দেওয়া কত বড় যে একটা ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে সেটি আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।। ভাবছেন সবাইতো কম দিয়ে করে দিচ্ছে।। আমি কি করে বেশি রেটে কাজ পাব? অবশ্যই পাবেন এবং রেট বাড়িয়ে দেখুন, তুলনামূলক আপনি আরো বেশি কাজ পাবেন। কারণ দিন দিন আমরা সভ্য হচ্ছি এবং আমাদের চিন্তা ধারণা পাল্টাচ্ছে। সস্তার যে তিন অবস্থা সেটা এখন আমরা সবাই বুঝি😛😛। তা না হলে এবার ঈদের শপিংয়ে আপনি একই ধরনের কাপড় ফুটপাত থেকে না কিনে কোন ব্র্যান্ড থেকে 10 গুণ বেশি দামে কিনতেন না। আপনি যখন এই ব্যাপারটি বোঝেন ধরে নেন সভ্য ক্লাইন্টরাও বুঝে। আর আপনি তো এখানে ভদ্রলোকদের সাথে কাজ করতে এসেছেন। শুধু শুধু কেন নিজের demand কমাবেন? নিজেকে কেন ছোট করবেন? নিজের কাজকে কেন ছোট করবেন? ধৈর্য ধরেন, অনলাইন থাকেন, social marketing করেন, ক্লায়েন্টদের সাথে সুন্দর ভাবে কমিউনিকেশন করার চেষ্টা করেন, বিভিন্ন রকম ভাবে নিজের marketing করেন। কাজ অবশ্যই পাবেন। এমনও হতে পারে দুই মাস বসেছিলেন কোন কাজ পাননি কিন্তু পরবর্তী সাত দিনের মাথায় এমন একটি কাজ পেয়েছেন যা কিনা গত এক বছরের খরচ তুলে দিতে সক্ষম। কখনো নিরাশ হবেন না। নিজের ভাগ্যের উপর ভরসা রাখুন।

৩। আপনি যখন মনোনিবেশ করেই ফেলছেন যে ফ্রিল্যান্সিং কি আপনার ক্যারিয়ার, এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিন আপনার পোর্টফোলিও এর উপর। একটি ভালো কাজের স্যাম্পল আপনাকে দিতে পারে আজীবন কাজের সুযোগ। তাই যে সময় অবসর পান সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিন আপনার পোর্টফোলিও এর উপর। high level ফ্রিল্যান্সারদের সাথে নিজেকে চিন্তা করতে শিখুন। তাদের জায়গায় নিজেকে ভাবতে শিখুন। তাদের মত করেই কাজ করার ক্ষমতা অর্জন করুন। এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হয় নিজের একটি পার্সোনাল ওয়েবসাইট কিংবা ল্যান্ডিং পেজ তৈরী করে ফেলা। মানে আপনার সব সার্ভিস এবং facility বিস্তারিত বলার থাকবে এবং আপনার কাজের স্যাম্পল ক্যাটাগরি অনুযায়ী সাজানো থাকবে। ক্লাইন্ট কে inspire করার জন্য যতরকম তথ্য দিতে পারেন দিবেন। এটা অনেক কাজে দিবে। চেষ্টা করুন এখান থেকেই নিজের সার্ভিসকে একটি brand এ রুপান্তরিত করতে। নিজে না পারলে পরিচিত কারও সহযোগিতা নিন। প্রয়োজন হলে সামান্য কিছু invest করুন। ধরে নিন এটি আপনার একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। বিনা ইনভেস্টে কি কোন ব্যবসা হয় বলুন?

সবশেষে একটি কথা বলতে চাই সব freelancer ভাই বোনদের উদ্দেশ্যে। এটি আমার ব্যক্তিগত request, দয়া করে কেউ রাগ হবেন না। কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপ এটি হচ্ছে আপনার রিজিকের মাধ্যম। এর মাধ্যমে আপনি কাজ করে আপনার নিজের এবং পরিবারের ভরণ পোষণ করেন। এটি হচ্ছে আপনার ব্যবসার মূলধন। এটিই হচ্ছে আপনার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। আমি অনেককেই দেখেছি পা দিয়ে কম্পিউটার অন করে, পা দিয়ে কিবোর্ড মাউস নাড়াচাড়া করে অথবা এক হাতে সিগারেট জ্বালিয়ে পা গুলো টেবিলের উপর কম্পিউটারের দিকে রেখে চেয়ারে হেলান দিয়ে এক মনে কাজ করে যাচ্ছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় কম্পিউটার এর উপর এতই ময়লা মনে হয় গত এক বছরেও কোনদিন পরিষ্কার করা হয়নি। যেখানে আপনি আপনার ব্যবসাকে সম্মান করতে পারছেন না সেখানে কি করে ভাবলেন আপনি এই ব্যবসার যোগ্য? একটি ক্লাসে সবাইতো ছাত্র। কেউ আদর্শ কেউ অনাদর্শ। আপনি বেছে নিন আপনি কোনটি হবেন।

লেখকঃ Mohammad Asadujjaman Sujan

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *